ঠাকুরগাঁওয়ে ঘুষের টাকা নিয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার দুদকের অভিযানে আটক

54

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি,, আটক ঠাকুরগাঁও জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনিসুর রহমান ,চলমান প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক পদে মৌখিক পরীক্ষার অবৈধ লেনদেনের অভিযোগ পেয়ে ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে অভিযান পরিচালনা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশনের একটি দল। এ সময় ঠাকুরগাঁও জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আনিসুর রহমান ও তার সহযোগী অফিস সহকারী জুলফিকার আলীকে ৫০ হাজার টাকাসহ আটক করেছেন দুদক কর্মকর্তারা।  সোমবার (৭ অক্টোবর) সকালে ১০টার দিকে এই অভিযান পরিচালনা করেন দুদকের দিনাজপুর অঞ্চলের সহকারী পরিচালক হাসানুল কবির পলাশ ও উপপরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমান।  খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,  প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীনে জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হয়েছে গত সেপ্টেম্বর মাসে। মৌখিক পরীক্ষার জন্য অন্য জেলাগুলোতে সময় নির্ধারণ করা হলেও অজ্ঞাত কারণে এখনো ঝুলে আছে ঠাকুরগাঁও জেলার মৌখিক পরীক্ষার সময়সূচি। এরই মধ্যে গত ৩০ সেপ্টেম্বর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিয়েছেন।  অভিযান চালানো দুদক কর্মকর্তারা জানান, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে কাগজপত্র জমা দেওয়ার সময় মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে অবৈধ লেনদেনের মুঠোফোনে অভিযোগ পায় দুদক। এর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার সকালে অভিযানে নগদ টাকাসহ তাদের আটক করে থানায় সোপর্দ করে দুদক। এর আগে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে তল্লাশি চালান অভিযানে আসা দুদকের কর্মকর্তারা।  দুদকের দিনাজপুর অঞ্চলের সহকারী পরিচালক হাসানুল কবির পলাশ জানান, সহকারী শিক্ষক নিয়োগের অবৈধ লেনদেনের অভিযোগ মুঠোফোনে পেয়ে ঘটনাস্থলে অভিযান পরিচালনা করে দুদকের একটি টিম। সেখানে নগদ টাকাসহ তল্লাশি চালিয়ে ব্যাপক অনিয়মের সত্যতা মিলেছে। আটক দুজনকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।  এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি আশিকুর রহমান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আকটকৃতদের থানায় নিয়ে আসা হয়েছিল। থানায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসার পর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার ভাড়া বাসায় অভিযান চালায় দুদক। তবে বাসায় তেমন কিছু পায়নি। পরে আটককৃতের সঙ্গে নিয়ে দিনাজপুরে উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছে দুদক টিম। সেখানে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে পাঠানো হবে।