মাগুরায় স্কুলের দুই শিক্ষার্থীর বিবাদকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের সংঘর্ষ

803

শহিদুজ্জামান চাঁদ,মাগুরাঃ স্কুলে শিশুদের মাঝে সামান্য বাকবিতন্ডায় হাতাহাতির বিষয়কে কেন্দ্র করে  অভিভাবকদের সংঘর্ষে দুই সহোদর গুরুত্বর জখম হয়েছে। মুমূর্ষু অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে মাগুরা ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।    
মাগুরা রাধানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণির দুই শিক্ষার্থীর  মধ্যে স্কুলে সামান্য  ঝগড়া মারামারির ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন তাদের অভিভাবক দুই পরিবার। এ ঘটনায় ইউসুফ মোল্লা ও মনিরুল মোল্লা নামে  দুই ভাই গুরুত্বর জখম অবস্থায় মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।গতকাল সোমবার বিকালে রাধানগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্কুলে শিশুদের মাঝে বিবাদের ঘটনা শুনে অভিভাবক মনিরুল প্রতিবেশী আরেক অভিভাবক শহিদ মন্ডলের বাড়িতে যেয়ে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসার এক পর্যায়ে তাদের মাঝে সংঘর্ষের সৃস্টি হয় বলে জানা যায়। এ সময় বড় ভাই ইউসুফ তাকে বাঁচাতে গেলে তাকেও বেধড়ক পিটিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত  জখমের ঘটনা ঘটে বলে জানান ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা। আহত ইউসুফ মোল্লা জানান, ছোট ভাই মনিরুলের ছেলে রাধানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ য় শ্রেণীর ছাত্র হৃদয়ের সাথে প্রতিবেশী শহিদ মন্ডলের ছেলে একই ক্লাসের সজিবের স্কুল থেকে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। স্কুল শেষে বাড়ি ফিরে হৃদয় তার বাবা মনিরুলকে সজিব তাকে মেরেছে বলে জানালে মনিরুল প্রতিবেশী শহিদ মন্ডলের বাড়ি যেয়ে তার ছেলেকে মারা হইছে কেন জানতে চাইলে শহিদের পরিবারের লোকেরা ক্ষিপ্ত হয়ে  মনিরুলকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে। চিৎকার চেচামেচি শুনে তিনি ছোট ভাইকে বাচাতে গেলে তার উপরও  হামলা চালায় তারা।  হামলার সময় ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করায় দুই ভাইয়ের মাথায় গুরুত্বর  রক্তাক্ত জখম হয়। পরে প্রতিবেশীরা এসে তাদের দুই ভাইকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। তার ছোট ভাই মনিরুলের অবস্থা এখনো আশংকাজনক বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন৷ এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবী করেন তিনি। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।