গনসংযোগে উত্তাল নির্বাচনী মাঠকিশোরগঞ্জ-১ আসনে ভাই-বোনের লড়াই হবে হাড্ডা-হাড্ডি

42

মো: সোহেল মিয়া, হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর ) আসনে বিরামহীন গনসংযোগে এখন উত্তাল কিশোরগঞ্জ-১ (হোসেনপুর- সদর) আসন। সাবেক অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের ছেলে মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঈগল প্রতীকে ও মেয়ে বর্তমান এমপি ডা: সৈয়দা জাকিয়া নুর লিপি নৌকা প্রতীকে একই নির্বাচনী আসনে নির্বাচন করায় বিষয়টি এখন জেলার সকল শ্রেণীর-পেশার মানুষের আলোচনা-সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। নির্বাচনী প্রচারনায় প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চলে মাইকিং,মিছিল,পথসভা ও গনসংযোগ। দেখলে মনে হবে যেন দম ফেলার সময় নেই দুই প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের। ধারনা করা হচ্ছে ভাই-বোনের মধ্যে লড়াই হবে হাড্ডা-হাড্ডি।
সূত্র মতে,স্বাধীনতার পর এ আসনটি বেশির ভাগ সময় আওয়ামীলীগের দখলে ছিল। সর্বশেষ  ১৯৯১ সালে বিএনপি এ আসনটি জয় লাভ করলেও পরবর্তীতে আবারও আওয়ামীলীগের দখলে চলে যায়। সৈয়দ আশরাফের মৃত্যুর পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তাঁর ছোট বোন বর্তমান এমপি ডা: সৈয়দা জাকিয়া নুর লিপি নৌকা প্রতীকে বিজয়ী হন। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আবারও আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রর্তীকে মিছিল মিটিং,গনসংযোগ ও উঠান বৈঠক করে শক্ত অবস্থান জানান দিতে সচেষ্ট রয়েছেন। অপরদিকে, আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম আসনটিতে তার ছোট বোন লিপির প্রতিদ্ব্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঈগল প্রর্তীক নিয়ে প্রত্যন্ত গ্রাম-গঞ্জে নিজে উপস্থিত থেকে মিছিল মিটিং,গনসংযোগ ও উঠান বৈঠক করে নির্বাচনী প্রচারনায় মাঠ দখলে রেখেছেন। তাই এবারের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাধারন ভোটার ও কর্মী সমর্থকরা এখন কৌশলী ভুমিকায়। 
কিশোরগঞ্জ-১ আসনে নৌকার সমর্থক ভোটাররা জানান, মিছিল মিটিং,গনসংযোগ ও উঠান বৈঠক করে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করেই তারা ঘরে ফিরবেন। বর্তমান এমপি ডা: সৈয়দা জাকিয়া নুর লিপি নির্বাচনী মাঠে গতবারের চেয়ে এবার আরো বেশি শক্তিশালী। তাই এবারও তিনি এ আসনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন। অপরদিকে সাবেক অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের ছেলে মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলামের কর্মী-সমর্থক ও ভোটারদের দাবি, ভোটারদের মনজয় করে ঈগল প্রতীকের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নেতাকর্মীরা ্একাট্টা। যদি সুষ্ট নির্বাচন হয় তবে কিশোরগঞ্জ-১ আসনটি সৈয়দ আশরাফের বিকল্প হিসেবে ছোট ভাই সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম জনগনের আশা আকাঙ্খা পূরণ করতে সক্ষম হবে।
তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ধারনা ভোটাররা যদি নিবিঘেœ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোটাধীকার প্রয়োগ করতে পারে তবে এ আসনে লড়াই হবে হাড্ডা হাড্ডি।
এ আসনে অন্যান্য প্রার্থীরা হলেন, জাতীয় পার্টির প্রার্থী লাঙ্গল প্রতীকে চক্ষু বিশেজ্ঞ ডা: মো, আব্দুল হাই, এনপিপি প্রার্থী আম প্রতীক মো.আনোয়ারুল কিবরিয়া, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট প্রার্থী ছড়ি প্রতীকে মো. আব্দুল আউয়াল, ইসলামী ঐক্যজোট প্রার্থী হাতপাখা মো.আশরাফ উদ্দিন, বাংলাদেশ কংগ্রেস প্রার্থী ডাব প্রতীকে মোবারক হোসেন।