নারী এবং মেয়েদের সাময়িক দৃষ্টিভঙ্গি

94

ডেস্ক : বাংলাদেশ বিচার ব্যবস্থা সুষ্ঠু না
-(১) কেউ নির্যাতন না করে নির্যাতনের মামলা খেয়েছে সমাজে আছে মন্তব্যঃ নিজের স্বার্থের জন্য আইনটি ব্যবহার করেছে। তারাও মানুষ না
(২) ধর্ষণ দিন দিন বেড়ে চলেছে যারা ধর্ষণ করে ওরা পশু এবং মানুষ নয়।

ভিন্ন প্রসঙ্গঃঅশ্লীলতা করার আগে যদি প্রেমের সম্পর্ক থাকে সেটা ধর্ষণ বলা কি ঠিক হবে কিনা? সেটার জন্য গার্ডিয়ান দায়ী।

(৩) আগে অল্প সংখ্যক ধর্ষণ শিকার হত তখন সেটাকে ঘৃণার চোখে দেখত।কারণঃ এখন মেয়েদের ২১ এর নিচে বিয়ে হচ্ছে না তাই বয়ফ্রেন্ড্ বানিয়ে চলে রাস্তা ঘাটে হয়ত কোনো সময় ধর্ষণ শিকার হয়ে যায় শকুনির চোখ পড়ে- চলার সময়। নারীরা এখনো মুক্তি পায়নি। বয়ফ্রেন্ড্ দ্বার অশ্লীলতা হয় ব্যভিচার হয়ে মেয়েদের হাসি থামায়) ।

(৪) নারীর এখন মুক্তি পেয়েছে কিন্তু কিছু শকুনির চোখ নিভেনি,শয়তানে এখন নিজে খারাপ কাজ করে ধর্ষণ করেভালো কথা বলে। জন্য উগ্র হয়ে কৌশলে কথা বলে

(৫) মেয়েদের প্রেমের জন্য উপযুক্ত ছেলেকে বাচাই করতে পারেনা প্রথম প্রেমের সম্পর্কে হয় ভদ্রতা দিয়ে তারপর শেষ হয় অশ্লীলতা দিয়ে।
কিছু লোক আছে ভালো মানুষকে ও সন্দেহ করে
তারাও খারাপ।

(৬) নারীর প্রতি লোভ কমলো না সমাজের তবে কারণঃ ধর্ষণ সংখ্যা কমে আসবে এবং অশ্লীলতা মেয়েরা বন্ধুত্বের চেয়ে বেশি কিছু কে সাপোর্ট না করে নিজের ভিতরে ।

(৭) ধর্ষণ হয় অযোগ্য দের যারা অযোগ্য ব্যাক্তিদের সাথে চলার জন্য কৌশল অবলম্বন করে চলতে হবে।