চুয়াডাঙ্গায় অবৈধ পথে গরু নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ কালে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষা বাহিনীর ছোড়া গুলিতে নিহত -১

22

চুয়াডাঙ্গা  থেকে তানজীর ফয়সালঃ চুয়াডাঙ্গায় বরিবার ১৮ অক্টোবর ভোর  ৪ টার দিকে ঠাকুরপুর সীমান্তে এক গরু ব্যাবসায়ী অবৈধ পথে গরু আনতে গিয়ে গরু নিয়ে বাংলাদেশে ফেরার পথে ভারতীয়  সীমান্ত রক্ষা বাহিনীর ছোড়া গুলিতে ঠাকুর পুর সীমান্তের ওমিদুল নিহত হয়েছে। নিহতের  লাশ ভারতীয়  সীমান্তের সীমানায় পড়ে আছেন বলে জানা গেছে। সীমান্তে গুলি করে হত্যার ঘটনায় বিজিবি প্রতিবাদ জানিয়েছেন। ভারতীয় সীমান্ত রক্ষা বাহিনী  (বি এস এফ এ)’র গুলিতে নিহত  হওয়া ওমিদুল ঠাকুরপুর পশ্চিমপাড়ার শহিদুল  ইসলামের ছেলে। 
বিজিবি ও স্থানীয় সূত্রে  জানা  যায়,  শনিবার দিনগত রাতে নিহত ওমিদুল সহ ৬-৭ জন গরু ব্যবসায়ী ঠাকুরপুর সীমান্ত  অতিক্রম করে  অবৈধভাবে  ভারত  প্রবেশ করেন গরু আনার জন্য। রোববার  ভোর আনুমানিক  ৪ ঘটিকার দিকে গরু নিয়ে ৮৮-৮৯ মেইন  পিলারের মাঝামাঝি এলাকা দিয়ে  দেশে ফিরে আসার সময় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী( বিএসএফ)  নদীয়া  জেলার কৃষ্ণনগর থানার লিঙ্গের পোতা বি এস এফ সদস্যরা উপস্থিত টের পেয়ে  ভারত প্রবেশ  করা বাংলাদেশীদের উপর  লক্ষ  করে গুলি ছোড়েন। বিএসএফ গুলি ছুড়লে সকলে পালিয়ে রক্ষা পেলেও গুলি বৃদ্ধ হন ওমিদুল, ওমিদুলের মাথায় গুলি বৃদ্ধ হওয়ায় ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। ভারতীয়  সীমান্ত রক্ষা বাহিনীর হাতে বাংলাদেশের যুবকের নিহতের বিষয়টি চুয়াডাঙ্গা -৬ বিজিবি’ র পরিচালক মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান ( পিএসসি)  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন – ওমিদুল পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী  ছিলেন, সে অবৈধভাবে  ভারতে প্রবেশ করেছিলেন। রবিবার  সকালে তার পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ  করলে আমরা বিএসএফের সঙ্গে   যোগাযোগ  করে ঘটনার  সত্যতা জানতে পায়। বিজিবির  পক্ষে  থেকে প্রতিবাদলিপিও পাঠানো হয়েছে। পতাকা  বৈঠকের মাধ্যমে  লাশ ফেরত দেয়ার জন্যও পত্র প্রেরণ করেছি। এ ঘটনায় ঠাকুর সীমান্তে নিহত ওমিদুলের বাড়িতে চলছে শেকের ছায়া।