কাঠালিয়ায় অসহায় ও ক্ষুধার্ত মানুষের জন্য ‘খুশির ঝুড়ি’

14

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠির কাঠালিয়া শহরের বিভিন্ন দোকানে এক অভিনব ঝুড়ির দেখা মিলছে। এর নাম ‘খুশির ঝুড়ি’। ঝুড়িতে পাউরুটি, বিস্কুট, কেক, ওয়াফার, কলাসহ নানা খাদ্যসামগ্রী আছে। অসহায় ও ক্ষুধার্ত মানুষ এ ঝুড়ি থেকে খাবার নিতে পারবেন। কাঠালিয়া পাইলট স্কুল এর সামনে সিয়াম কসমেটিকস এবং উপজেলা পরিষদ এর সামনের কিছু দোকান ছাড়াও শহরের বিভিন্ন স্থানে এ ঝুড়ির দেখা মিলল। কাছে গিয়ে দেখা গেল ঝুড়িটির সঙ্গে একটি ফেস্টুন যুক্ত করা। সেখানে লেখা ‘খুশির ঝুড়ি’ অসহায় ও ক্ষুধার্ত মানুষের জন্য খুশির ঝুড়ি। অসহায় ও ক্ষুধার্ত মানুষ এই ঝুড়ি থেকে খাবার নিতে পারবেন। আপনি চাইলে এই দোকান থেকে খাবার কিনে ঝুড়িতে রাখতে পারেন।’ খুশির ঝুড়ির ভেতরে রয়েছে পাউরুটি, বিস্কুট, কেক, ওয়াফার, কলাসহ বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী। উপজেলা পরিষদ এর সামনের ওই দোকানের ঝুড়িটি সম্পর্কে জানতে চাওয়ায় দোকানমালিক শাহারুম হোসেন বললেন, ‘এ ঝুড়ি থেকে যেকোনো অসহায় ও ক্ষুধার্ত মানুষ যেকোনো সময় যেকোনো খাবার নিতে পারবেন বিনা মূল্যে। আর যদি কোনো স্বহৃদয়বান ব্যক্তি দোকান থেকে কিছু কেনার সময় ঝুড়িটিতে অসহায়দের জন্য খাবার রাখতে চান, চাইলে সেটাও করতে পারবেন। প্রতিদিন অনেকেই ঝুড়িটি দেখে নিজের ইচ্ছায় খাবার কিনে দিচ্ছেন আর অসহায় মানুষ যখন দোকানে কিছু চাইতে আসছেন, তখন ঝুড়ি থেকে খাবার দিচ্ছি।’ দোকানির সঙ্গে কথা বলে আরও জানা গেল, কাঠালিয়ায় এই খুশির ঝুড়ির উদ্যোগ নিয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দুরন্ত ফাউন্ডেশন কাঠালিয়া উপজেলা শাখা । এদিকে দুরন্ত ফাউন্ডেশন কাঠালিয়া শাখার সদস্য সচিব সোয়েবুজ্জামান তিতাস ও সদস্য সাদিয়া জাহান মনি বলেন,খুশির ঝুড়ি অসহায় মানুষের মধ্যে খুশি ছড়াচ্ছে। কাঠালিয়ায় ভিক্ষুক, রিকশাচালকসহ, ক্ষুধার্ত মানুষ প্রতিদিন খুশির ঝুড়ি থেকে খাবার নিয়ে ক্ষুধা নিবারণ করতে পারছেন।