মহেশখালীতে ঘটিভাঙ্গা মৌজার ৫০ একর খাস জমি দখলের পায়তারা

20

মহেশখালী উপজেলার কুতুবজোম ইউনিয়নের ঘটিভাঙ্গা মৌজার ভাঙ্গার খাল নামক স্থানের ৫০ একর সরকারী খাস জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে বড়মহেশখালী ইউনিয়নের শুকুরিয়া পাড়ার গ্রামের মৃত কালু মিয়ার পুত্র মৌঃ নুরুল হকের বিরুদ্ধে। উক্ত জমি উদ্ধারের ব্যাপারে এলাকাবাসীর পক্ষে জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ দায়ের করে একই এলাকার মোঃ নুর বকস।
উক্ত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ঘটিভাঙ্গা মৌজার ভাঙ্গার খাল দিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে মহেশখালীর লবণচাষীদের লবন পরিবহনের জন্য ট্রলার যাতায়াত ও পানি চলাচল হয়ে থাকে। বর্ষামৌসুমে মাছ চাষীদের ঘেরে পানি চলাচলের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে খালটি ব্যবহৃত হচ্ছে। অপরদিকে গ্রীষ্ম মৌসুমে লবন মাঠে ভাঙ্গার খাল দিয়ে পানি সরবরাহ হয়ে থাকে। গত কিছু দিন পূর্ব থেকে মৌঃ নুরুল হক তার লোকজন নিয়ে ভাঙ্গার খাল সহ আশেপাশের প্রায় ৫০ একর সরকারী খাস জমি দখল করছে। এতে মাছ ও লবন চাষে পানি সরবরাহ সহ বোট চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে। যার কারণে স্থানীয় জনসাধারণ নানান সমস্যার সম্মুখিন হবে। অপরদিকে সরকারী কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি অবৈধ দখলদারের হাতে চলে যাচ্ছে। জনস্বার্থে এ জমি উদ্ধারের জন্য মোঃ নুর বকস এলাকাবাসীর পক্ষে জেলা প্রশাসক, কক্সবাজার বরাবর অভিযোগ প্রদান করে বলে জানা যায়।