সুষ্ঠু বাস্তবায়নে গণমাধ্যমের দায়িত্বশীলতা ও সহযোগিতা খুবই জরুরি : রাষ্ট্রপতি

395

অনলাইন ডেস্ক: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন,সুষ্ঠু বাস্তবায়নে গণমাধ্যমের দায়িত্বশীলতা ও সহযোগিতা খুবই জরুরি। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ ও মতামত পরিবেশনের মাধ্যমে সাম্য, ন্যায়ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় গণমাধ্যমকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের পক্ষ থেকে ‘বাংলাদেশে প্রেস কাউন্সিল দিবস ২০২২’ উদযাপনের উদ্যোগকে রাষ্ট্রপতি স্বাগত জানান। অনুসন্ধানী ও সৃজনশীল প্রতিবেদনের জন্য বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল পদকপ্রাপ্ত গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

আগামীকাল ১৪ ফেব্রুয়ারি ‘বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল দিবস ২০২২’ উপলক্ষে আজ রোববার এক বাণীতে তিনি এ আহ্বান জানান। খবর তথ্য বিবরণীর। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংবাদপত্রের স্বাধীনতা রক্ষা ও সাংবাদিকতার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে ১৯৭৪ সালে ‘বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল আইন প্রণয়ন করেন’ এবং প্রতি বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি ‘বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল দিবস’ উদযাপিত হয়ে আসছে। ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে সংবাদপত্রের গুণগত মান নিশ্চিতকরণের পাশাপাশি হলুদ সাংবাদিকতা রোধে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, তথ্যের অবাধ প্রবেশাধিকার এবং জনগণের ক্ষমতায়ন পারস্পরিক সম্পর্কযুক্ত। গণতন্ত্রের বিকাশসহ এর প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে স্বাধীন ও নিরপেক্ষ সংবাদপত্রের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাধীন ও মুক্ত গণমাধ্যম গণতন্ত্রকে সুসংহত করার পাশাপাশি মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় ইতিবাচক অবদান রাখতে পারে।

গণতন্ত্রকে সুসংহত করার পাশাপাশি মানবাধিকার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠাসহ ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করতে সরকার নানা উদ্যোগ ও কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।